শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৯:২১ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
হারুন-মামুনকাণ্ড : আরও ৭ দিন সময় চাইলো তদন্ত কমিটি যুদ্ধ স্যাংশন সংঘাতের পথ এড়াতে প্রধানমন্ত্রীর আহবান নরসিংদীতে জেলা রাজস্ব প্রশাসনের অফিস সহায়ক পদের নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রি-বার্ষিক সন্মেলন অনুষ্ঠিত- রনি সভাপতি বাবু সা. সম্পাদক ডেঙ্গুতে ২১ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে তিন হাজারের বেশি রোগী নরসিংদীতে চরদিঘলদীতে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে টেঁটাবিদ্ধসহ আহত ৭ নিউজিল্যান্ড সিরিজের দলে ফিরলেন তামিম-মাহমুদউল্লাহ ভিটিমরজালে যাত্রীবাহি বাসের ধাক্কায় অটোরিকশার ৩ যাত্রী নিহত, আহত ৩ নরসিংদীতে লাবিবা পরিবহনের ফাদে পড়ে ঝড়ে পড়ছে একাধিক প্রাণ নরসিংদীতে ৫ ঘন্টার ব্যবধানে সড়কে প্রাণ গেল ৬ জনের

কম ঘুমে ত্বকের সমস্যা, জেনে নিন সমাধান

  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৬১৫ বার দেখেছে

ঘুমের ত্বকের সম্পর্ক রয়েছে। চোখের নিচে কালি দেখলেই বলে দেয়া যায়, ঘুম কম হয়েছে! ঘুম কম হলে ত্বকে ক্লান্তভাব ফুটে ওঠে। আমাদের সচল ও সজীব রাখার জন্য সবচেয়ে ভালো উপায় হলো ঘুম। ঘুম ভালো হলে সারাদিন নিজেকে চাঙ্গা মনে হয়, পুনরুজ্জীবিত হয়ে ওঠে আমাদের ত্বকও। ঘুমের সমস্যা আমাদের ত্বককে প্রভাবিত করতে পারে; ব্রণ, ত্বক শুকিয়ে যাওয়া, ত্বকে অ্যালার্জি ইত্যাদির মতো বিভিন্ন সমস্যাগুলোকে বাড়াতে পারে। বোল্ডস্কাই জানাচ্ছে ঘুম কম হলে তা ত্বকে কীভাবে প্রভাব ফেলে-

যখন পর্যাপ্ত ঘুম না হয় তখন আমাদের ত্বক উজ্জ্বলতা হারিয়ে ফেলে এবং নিস্তেজ ও শুষ্ক হয়ে যায়। কারণ ঘুমের অভাবে করটিসলের মাত্রা বৃদ্ধি করে। এটি একটি হরমোন যা, ত্বকে প্রদাহ সৃষ্টি করে এবং ত্বককে নিস্তেজ করে তোলে।

নিদ্রাহীনতার একটি বড় প্রভাব হলো – ত্বকে ব্রণ, পিম্পল ইত্যাদি হওয়া। ঘুমের অভাব প্রতিরোধ ক্ষমতাকে দুর্বল করে দেয় এবং এর ফলে ত্বকে ব্রণ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বেড়ে যায়। এছাড়াও, ঘুমের অভাবে ত্বকের প্রদাহ বৃদ্ধি পায়।

ঘুমের সমস্যার কারণে ত্বকের ধরনও খারাপ হতে পারে। সুতরাং, আপনি যদি ব্রণ বা অন্য কোনো ত্বকের সমস্যায় ভুগে থাকেন তবে আপনার ঘুমের বিষয়ে আরও সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। রাতে ভালো ঘুম হলে ত্বক দ্রুত নিরাময় হবে।

ত্বককে সতেজ করতে এবং স্বাস্থ্যকর রাখতে সঠিক ঘুম জরুরি। কম ঘুম ত্বকে কোলাজেনের উৎপাদন হ্রাস করে এবং ত্বকের বার্ধক্যজনিত লক্ষণ ফুটে উঠতে পারে।

চোখের নিচের অংশ সংবেদনশীল তাই এটি সহজেই আক্রান্ত হয়। ঘুমের অভাব হলে তা সাধারণত চোখের নিচের অংশেই প্রতিফলিত হয়। সাধারণত চোখের তলায় কালি বেশি দেখা যায়। এটি আপনার পুরো চেহারাকে নষ্ট করতে পারে, তাই এগুলি হালকাভাবে নেয়া উচিত নয়।

ঘুমের সমস্যা আপনার ওজনকে প্রভাবিত করতে পারে। গবেষণায় দেখা গেছে যে, ঘুমের অভাব স্থূলতার সমস্যা বাড়িয়ে তোলে। কারণ, ঘুমের অভাব আরও বেশি ক্ষুধার্ত করে তোলে। এসব কিছু আমাদের ওজন বাড়াতে পারে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ